অনলাইনে কেনাকাটা বন্ধ করে ১১ মাসেই মেটালেন ১৯ লাখ টাকার ঋণ!


ই-কমার্সের এই জয়জয়কারের যুগে এক ক্লিকে কেনাকাটা সেরে ফেলেন অনেকেই। তবে যারা কেনাকাটা করতে পছন্দ করেন, তারা অনলাইনে কেনাকাটার সময় লাগাম টেনে ধরতে পারেন না। কিনে ফেলেন অপ্রয়োজনীয় অনেক জিনিস। সেসব জিনিস আদেপে কাজে না লাগলেও পকেট ফাঁকা হয় ঠিকই। হাতেও জমে না কোনো টাকা।

তেমনই অনলাইনে কেনাকাটার বাতিক ছিল যুক্তরাজ্যের বাসিন্দা জেমা জর্ডনের। আর এই শপিংয়ের বাতিকের কারণেই দেনায় ডুবে গিয়েছিলেন তিনি। ঋণ করে ফেলেছিলেন ১৭ হাজার পাউন্ড (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৯ লাখের বেশি টাকা)। ব্রিটিশ সংবাদসমাধ্যম মিরর এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

তবে এক সময় দুই সন্তানের মা জেমা ভাবলেন এই কেনাকাটার বাতিক তার শুধু ক্ষতিই করছে। তাই এই বদ অভ্যাসের রাশ টেনে ধরতে চাইলেন তিনি।

৪০ বছরের জেমা নিজের খরচ কম করার জন্য একটি মানি ম্যানেজমেন্ট অ্যাপ ডাউনলোড করেন। আর সেই অ্যাপ ব্যবহার করে তিনি বুঝতে পারেন যে প্রতি মাসে কী পরিমাণ অপ্রয়োজনীয় খরচ করতেন৷ তিনি এই অপ্রয়োজনীয় খরচ অনলাইন শপিংয়ে করতেন৷ তিনি এক বছর অ্যামাজনে কেনাকাটা বন্ধ করে এক বছরের মধ্যে ১৭,০০০ হাজার পাউন্ডের ঋণ মিটিয়ে ফেলেন৷

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিজের এই নেশার কথা জানার পর তিনি অ্যামাজনে কেনাকাটা বন্ধ করে দেন৷ প্রায় ৬ মাস পর্যন্ত অনলাইনে কিছুই অর্ডার করেননি জেমা৷ এরপর তিনি ফুড শপে কেনাকাটাও বন্ধ করে দেন৷ এভাবেই ১১ মাসে ১৭,০০০ হাজার পাউন্ডের ঋণ মিটিয়ে ফেলেন জেমা।



Source link

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *