কবির খানকে চাপা দেওয়া ময়লার গাড়িও চালাচ্ছিলেন পরিচ্ছন্নতাকর্মী!


রাজধানীর পান্থপথে প্রথম আলোর সাবেক কর্মী আহসান কবির খানকে চাপা দেওয়া ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ময়লার গাড়ির মূল চালক রুবেল উদ্দিন। তার স্থলে যিনি আজ (২৫ নভেম্বর) গাড়িটি চালাচ্ছিলেন তিনি মূলত পরিচ্ছন্নতাকর্মী। ফটিক নামে পরিচিত এ পরিচ্ছন্নতাকর্মী ডিএনসিসির বৈধ নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মীও নন।

ডিএনসিসির একাধিক সূত্র জাগো নিউজকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে। তবে এ বিষয়ে জানতে ডিএনসিসির পরিবহন বিভাগের মহাব্যবস্থাপক মিজানুর রহমানের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বেলা আড়াইটার দিকে রাজধানীর বসুন্ধরা সিটি কমপ্লেক্সের উল্টো দিকে আহসান কবিরকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যান ফটিক। উপস্থিত জনতা তাকে ধাওয়া দিলে পান্থপথ সিগন্যালে গিয়ে গাড়িটি রেখে পালিয়ে যান তিনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ডিএনসিসির এক কর্মকর্তা বলেন, দক্ষিণ সিটির মতো ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনেও চালকের সংকট রয়েছে। ক্লিনার-পিয়নদের দিয়ে গাড়ি চালানো হয়। রয়েছে বহিরাগত চালকও। বৈধ চালকরা তাদের গাড়ির চাবি অন্যদের দিয়ে দেন। তারা তেল চুরি করে নিজের পরিবার চালান। এর সঙ্গে করপোরেশনের পরিবহন বিভাগের শীর্ষ কর্মকর্তারাও জড়িত রয়েছেন। বৈধ চালক নিয়োগের কোনো ব্যবস্থাও নেওয়া হচ্ছে না। বিষয়টি নিয়ে কোনো তদারকিও নেই।

ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নিহত আহসান কবির খানের (৪৫) বিষয়ে ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ঘাতক চালকের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতোমধ্যে ডিএনসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমডোর এসএম শরিফ-উল ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া নিহতের পরিবারের সহযোগিতার প্রয়োজন হলে তা করা হবে।

ডিএনসিসি সচিব (যুগ্মসচিব) মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক স্বাক্ষরিত অফিস আদেশে প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমডোর এসএম শরিফ-উল ইসলামকে আহ্বায়ক এবং মহাব্যবস্থাপক (পরিবহন) মো. মিজানুর রহমানকে সদস্য সচিব করে তদন্ত কমিটিটি গঠন করা হয়। এই কমিটিতে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) আবুল হাসনাত মো. আশরাফুল আলমকে সদস্য করা হয়েছে।

এমএমএ/কেএসআর/জেআইএম



Source link

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *