বাগেরহাটের মেয়র হাবিবুরের বিরুদ্ধে দুই মামলা


বাগেরহাট পৌরসভার মেয়র খান হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে ২ কোটি ২৬ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে পৃথক দুটি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বিকেলে দুদকের সম্মিলিত খুলনা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ বাদী হয়ে এ মামলা করেন। বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন দুদকের উপ-পরিচালক নাজমুল হাসান।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, কোনোরূপ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি না দিয়ে এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের নিয়োগ বিধি না মেনে দিপু দাসসহ ১৭ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়। এ থেকে ২০১৭ সালের ৩ মার্চ থেকে ২০২০ সালের ২৫ জুলাই পর্যন্ত এক কোটি ২৬ লাখ টাকা আত্মসাৎ করা হয়। এ ঘটনায় বাগেরহাট পৌর মেয়র খান হাবিবুর রহমানসহ ১৭ জনের নামে মামলা করা হয়।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন- দিপু দাস, আসাদুজ্জামান, জ্যোতি দেবনাথ, মারুফ বিল্লাহ, শহিদুল ইসলাম, শারমিন আক্তার বনানী, হাসান মাঝি, হাসনা আক্তার, মো. জিলানী, তানিয়া, অপূর্ব কুমার রায়, মেহেদী হাসান, সৌদি করিম, পারভিন আক্তার ও সেতু পাল। এর সকলেই পৌর সভার সাবেক কর্মী ছিল।

একই বাদী এক কোটি টাকার প্রকল্পের কাজ না করে আত্মসাৎ করার অভিযোগে বাগেরহাট পৌর মেয়র খান হাবিবুর রহমানসহ দুজনের নামে পৃথক আরও একটি মামলা করেন।

এ মামলার এজাহারে বলা হয়, বাগেরহাট ডায়াবেটিকস হাসপাতাল এবং আবাহনী ক্রীড়া কমপ্লেক্স নির্মাণ বাবদ ২ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। পৌর মেয়র এ নির্মাণ কাজ না করে ১ কোটি টাকা উঠিয়ে আত্মসাৎ করেন। এ মামলায় পৌর মেয়র খান হবিবুর রহমান এবং পৌরসভার সাবেক সচিব (বর্তমানে মাগুরা পৌরসভার সচিব) মো. রেজাউল করিমকে আসামি করা হয়েছে।

আলমগীর হান্নান/এসজে/জেআইএম



Source link

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *