বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষাতেও প্রথম বগুড়ার সিয়াম


বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে বুয়েটের ভর্তি ওয়েবসাইটে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়। চূড়ান্ত পর্বের ভর্তি পরীক্ষায় প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত এবং অপেক্ষমান প্রার্থীদের তালিকা বুয়েটের নোটিশ বোর্ডেও দেওয়া হয়েছে।

দেশে প্রকৌশল শিক্ষার সবচেয়ে বড় এ শিক্ষায়তনে প্রকৌশল, পুরকৌশল, যন্ত্রকৌশল, তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক কৌশল এবং স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের অধীনে ১২টি বিভাগে মোট ১ হাজার ২১৫ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবেন এবার।

ফলাফলে দেখা যায় প্রকৌশল এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা (ইউআরপি) বিভাগে প্রথম হয়েছেন মেফতাউল আলম সিয়াম। আর স্থাপত্য বিভাগের ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম হয়েছেন ঢাকার হলি ক্রস কলেজের নাবিলা তাবাসসুম।


‘রেকর্ড’ নম্বর পেয়ে ঢাবির ‘ক’ ইউনিটে প্রথম বগুড়ার সিয়াম
 

সিয়াম এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ১২০ নম্বরের মধ্যে ১১৭ দশমিক ৭৫ পেয়ে রেকর্ড গড়েন। ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির (আইইউটি) ভর্তি পরীক্ষাতেও প্রথম হন। তিনটি প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় তার অবস্থান ছিল তৃতীয়।

গত এপ্রিলে প্রকাশিত মেডিকেলের সম্মিলিত ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলে ২৮২ দশমিক ৭৫ নম্বর পেয়ে ৫৯তম হয়েছিলেন সিয়াম। মেধাতালিকার শুরুর দিকে থাকায় ঢাকা মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন তিনি।

তবে সিয়ামের ইচ্ছা প্রৌকশলী হওয়ার। এর আগে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেছিলেন,  বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা ভালো করতে পারলে সেখানেই ভর্তি হবেন।

এবার দুই ধাপে ভর্তি পরীক্ষা নিয়েছে বুয়েট। মহামারী পরিস্থিতি বিবেচনায় গত ২০ ও ২১ অক্টোবর চার শিফটে ভাগ করে প্রাক-নির্ববাচনী পরীক্ষা নেওয়া হয়। সেখানে সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া ৬ হাজার পরীক্ষার্থীকে চূড়ান্ত পর্বের পরীক্ষার জন্য ডাকা হয়।

পরিবহন ধর্মঘটের মধ্যেই ৬ নভেম্বর  চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নেন ৫ হাজার ৯৪৪ জন শিক্ষার্থী। চূড়ান্ত ফলাফলের মেধাতালিকায় প্রথম দিকে থাকা ১ হাজার ২১৫ জনকেই বুয়েটের ১২টি বিভাগে ভর্তির সুযোগ দেওয়া হবে।

বুয়েটের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মেধাতালিকা ও পছন্দক্রম অনুসারে প্রার্থীদের বিভাগ বণ্টন পরে ওয়েবসাইটেই প্রকাশ করা হবে। প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীরা প্রথমধাপে স্বাস্থ্য পরীক্ষা, দ্বিতীয় ধাপে ভর্তি ফি প্রদান এবং তৃতীয় ধাপে মূল সনদ, স্বাস্থ্য পরীক্ষার রিপোর্ট এবং ভর্তি ফির রশিদ জমা দিয়ে ভর্তি হতে পারবেন।

অপেক্ষমান তালিকা থেকে যারা ভর্তির জন্য নির্বাচিত হবেন, তাদের সনদ ও অন্যান্য কাগজপত্র যাচাইয়ের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে। স্বাস্থ্য পরীক্ষার ছাড়পত্র নিশ্চিত হলে তাৎক্ষণিকভাবে ভর্তি ফি জমা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। ফি দেওয়ার পর রশিদের মূল কপিসহ তিনটি কপি নির্ধারিত বুথে জমা দিতে হবে।



Source link

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *